আশা এনজিও লোন পদ্ধতি | Asa Ngo Loan

আশা এনজিও লোন পদ্ধতি

আমাদের দেশের প্রায় সকল শ্রেণীর মানুষের লোন নেয়ার প্রয়োজন হয়ে থাকে। বিশেষ করে গ্রামাঞ্চলের মানুষ লোনের উপর বেশি নির্ভরশীল এবং তারা বিভিন্ন ব্যাংক কিংবা এনজিও থেকে লোন নিয়ে থাকে। বাংলাদেশে অনেক NGO প্রতিষ্ঠান রয়েছে। তাদের মধ্যে আশা এনজিও (ASA NGO) অন্যতম। আজকে আপনাদের মাঝে আশা এনজিও লোন পদ্ধতি সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য দেয়ার চেষ্টা করবো। 

যারা আশা এনজিও (ASA NGO) থেকে লোন নিতে চান তারা সম্পূর্ণ লেখাটি পড়বেন তাহলে আশা এনজিও লোন পদ্ধতিসহ এ বিষয়ে বিস্তারিত তথ্য জানতে পারবেন। ফলে আশা এনজিও থেকে লোন নেয়ার ক্ষেত্রে সিদ্ধান্ত নিতে সুবিধা হবে। তাহলে চলুন দেরি  না করে শুরু করা যাক-

Table of Contents

আশা এনজিও - ASA NGO

আশা একটি বেসরকারি সংস্থা। আশা বা ASA এর সম্পূর্ণ রুপ হচ্ছে Association for Social Advancement। ১৯৭৮ সালে মোঃ সফিকুল হক চৌধুরী আশা এনজিও প্রতিষ্ঠা করেন। মুলত আশা এনজিও এর লক্ষ্য হচ্ছে দেশের দরিদ্র জনগোষ্ঠীর মাঝে ক্ষুদ্র ও মাঝারি ঋণ প্রদানের মাধ্যমে তাদের আর্থ-সামাজিক উন্নয়ন ও দারিদ্র্য বিমোচন করা।

আশা এনজিও থেকে লোন পাওয়ার শর্ত

আশা এনজিও থেকে লোন নিতে হলে আপনাকে তাদের কিছু শর্ত মেনে চলতে হবে। অন্যথা তারা আপনাকে লোন দেবে না। তাদের শর্তগুলো তেমন কোন জটিল শর্ত না। নিম্নে শর্তসমূহ উল্লেখ করা হলো-

  • অবশ্যই বয়স ১৮ বছর থেকে ৬৫ বছরের মধ্যে হতে হবে।
  • আশা এনজিও থেকে লোন নিতে হলে আপনাকে বিবাহিত হতে হবে।
  • আপনাকে আশা এনজিও'র গ্রাহক হতে হবে।
  • ৪৫ কিস্তির মধ্যে আপনাকে সম্পূর্ণ লোনের টাকা পরিশোধ করতে হবে।
  • লোন নেয়ার জন্য অবশ্যই একজন গ্যারান্টার লাগবে।
  • লোন পরিশোধ করার মত সক্ষমতা থাকতে হবে।
  • পূর্বে নেয়া লোন পরিশোধ করার ক্ষেত্রে কোন প্রকার খারাপ রেকর্ড থাকা যাবেনা।
  • অবশ্যই নিজের একটি বাড়ি থাকতে হবে।
  • যে ব্রাঞ্চ থেকে লোন নেবেন সেই অঞ্চলের স্থায়ী বাসিন্দা হতে হবে।

আশা এনজিও লোনের প্রকারভেদ

আপনি আপনার যে কোন প্রয়োজনে আশা এনজিও থেকে লোন নিতে পারবেন। তবে তাদের নিয়ম অনুযায়ী তারা প্রধানত ৩ ধরণের লোন জনগণের মাঝে বিতরণ করে থাকে।

  • প্রাথমিক লোন বা Primary Loan
  • বিশেষ লোন বা Special Loan
  • এসএমই লোন SME Loan

আশা এনজিও কত টাকা লোন দিয়ে থাকে?

আশা এনজিও থেকে বিভিন্ন মেয়াদে বিভিন্ন অংকের লোন পাওয়া যায়। নিম্নে আশা এনজিও লোনের প্রকারভেদ অনুযায়ী সর্বনিম্ন এবং সর্বোচ্চ কত টাকা লোন দেয় সে বিষয়ে উল্লেখ করা হলো-

আশা এনজিও প্রাথমিক লোন

প্রাথমিক লোন হচ্ছে আশা এনজিও'র সব থেকে জনপ্রিয় একটি লোন। প্রাথমিক লোনের মধ্যে উল্লেখ যোগ্য কিছু লোন হচ্ছে ক্ষুদ্র ও মাঝারী লোন, মৌসুমী লোন, শিক্ষা লোন, স্যানিটেশন লোন ইত্যাদি। আশা এনজিও প্রাথমিক লোন সর্বনিম্ন ৫০০০ টাকা থেকে ১ লক্ষ্য টাকা পর্যন্ত দেয়া হয়।

তাছাড়া ১৫০০০ টাকা শিক্ষা লোন দেয়া হয়, যা এক বছর মেয়াদী হয়ে থাকে। এই লোন সাপ্তাহিক কিস্তির মাধ্যমে পরিশোধ করতে হয় সর্বমোট ৪৪ টি কিস্তিতে।

মৌসুমী লোন দেয়া হয় সর্বনিম্ন ২০০০০ টাকা থেকে সর্বোচ্চ ৭০০০০ টাকা পর্যন্ত। এই লোন পরিশোধের সময়সীমা ছয় মাস। ছয় মাস পরে সার্ভিস চাজসহ একবারে লোনের টাকা পরিশোধ করতে হয়।

স্যানিটেশন লোন দেয়া হয় সর্বনিম্ন ১০০০০ টাকা থেকে সর্বোচ্চ ২০০০০ টাকা পর্যন্ত। এই লোন পরিশোধের সময়সীমা এক বছর এবং সাপ্তিহক কিস্তির মাধ্যমে মোট ৪৪ কিস্তিতে লোন পরিশোধ করতে হয়।

আশা এনজিও বিশেষ লোন

আশা এনজিও বিশেষ লোন হিসেবে সর্বনিম্ন ১ লক্ষ টাকা থেকে ৫ লক্ষ টাকা পর্যন্ত লোন দিয়ে থাকে। যারা গুরুর খামার করার জন্য লোন নিতে চান কিংবা উদ্যোক্তা হতে চান তারা আশা এনজিও থেকে এই বিশেষ লোন বা Special Loan নিতে পারেন।

আশা এনজিও'র বিশেষ লোন বিভিন্ন মেয়াদে পরিশোধের সুযোগ রয়েছে। বিশেষ লোন পরিশোধের জন্য ১ বছর, দেড় বছর এবং ২ বছর পর্যন্ত সময় দেয়া হয়।

আশা এনজিও SME লোন

আশা এনজিও এর SME লোন অনেকগুলো বড় বড় অংকের হয়ে থাকে। এসএমই লোন সর্বনিম্ন ৫ লক্ষ টাকা থেকে ৫০ লক্ষ টাকা পর্যন্ত দেয়া হয়। এসএমই লোন পরিশোধের সময়সীমা ২ বছর পর্যন্ত থাকে।

আশা এনজিও লোন পদ্ধতি

আশা এনজিও লোন পদ্ধতি অত্যন্ত সহজ। মানুষ যাতে খুব সহজে লোন নিতে পারে সেই কারণে আমাদের দেশের প্রতিটি জেলার প্রতিটি উপজেলায় আশা এনজিও এর একাধিক ব্রাঞ্চ রয়েছে। তবে লোন নেয়ার জন্য আবেদন করার আগে আপনাকে সিদ্ধান্ত নিতে হবে কোন লোনটি আপনার জন্য ভালো হবে।

যে লোন নেবেন সে বিষয়ে নিশ্চিত হওয়ার পর অবশ্যই আপনার নিকটস্থ আশা এনজিও ব্রাঞ্চে যেতে হবে। সেখানে কর্তব্যরত কর্মকর্তা/কর্মচারীগণ আপনাকে আপনার লোনের বিষয়ে আরো বিস্তারিত তথ্য জানাবে। 

যদি তাদের নিয়মকানুন আপনার অনুকূলে থাকে তাহলে লোন নেয়ার জন্য আবেদন করতে পারবেন। তারা আপনার লোন ফরম পূরণ করে দেবে। আপনি শুধু প্রয়োজনীয় কাগজপত্র এবং ছবি জমা দিয়ে লোন ফরমে স্বাক্ষর করবেন। তাহলেই আপনার লোন পাশ হয়ে যাবে।

আশা এনজিও লোন নিতে কি কি লাগে

আশা এনজিও থেকে লোন নিতে হলে অবশ্যই আপনাকে কিছু কাগজপত্র জমা দিতে হবে। তবে এ সকল কাগজপত্র আপনি খুব সহজেই সংগ্রহ করতে পারবেন। নিম্নে প্রয়োজনীয় কাগজপত্রের বিষয়ে উল্লেখ করা হলো-

  • আশা এনজিও লোন ফরম অফিস থেকে সংগ্রহ করে পূরণ করতে হবে।
  • পাসপোর্ট সাইজের রঙ্গিন ছবি জমা দিতে হবে।
  • জাতীয় পরিচয়পত্রের ফটোকপি জমা দিতে হবে।
  • জমির দলিল/পর্চার কপি জমা দিতে হবে।
  • নাগরিক সনদ জমা দিতে হবে।
  • আপনার যদি সার্ভিস আইডি কার্ড থাকে তাহলে সেটার কপি জমা দিতে হবে।
  • স্যালারি শীট এর কপি জমা দিতে হবে।
  • বাড়ির বিদ্যুৎ বিলের একটি কপি জমা দিতে হবে।
  • আয়করের রির্টানের কপি জমা দেবেন।
  • ড্রাইভিং লাইসেন্স অথবা পাসপোর্টে ফটোকপি।
  • ব্যাংকে একাউন্ট থাকলে বিগত এক মাসের ব্যাংক স্টেটমেন্ট জমা দিতে হবে।

আশা এনজিও থেকে লোন পাওয়ার ক্ষেত্রে উপরোক্ত কাগজপত্রগুলো জমা দেয়ার প্রয়োজন হবে। তবে এখানে উল্লেখিত কাগজপত্রগুলো সকলের জন্য প্রযোজ্য নয়। যার ক্ষেত্রে যেটি প্রযোজ্য হবে তিনি সেই কাগজগুলো জমা দেবেন।

আশা এনজিও লোনের সুদের হার

আশা এনজিওতে যেমন ভিন্ন ভিন্ন লোন নেয়ার সুবিধা রয়েছে। তেমনি লোনের সুদের হারও ভিন্ন ভিন্ন রয়েছে। নিম্নে আশা এনজিও লোনের সুদের হার সম্পর্কে তথ্য উল্লেখ করা হলো।

  • আশা এনজিও প্রথমিক লোন সুদের হার ১৩ % হয়ে থাকে।
  • আশা এনজিও স্পেশাল লোন সুদের হার ১০% থেকে ১২.৫% হয়ে থাকে।
  • আশা এনজিও এসএমই লোন সুদের হার ১৩% থেকে ১৪% এর মধ্যে হয়ে থাকে।

তবে কখনো কখনো এই সুদের হার পরিবর্তন হতে পারে। তাই আশা এনজিও থেকে লোন নেয়ার সময় অবশ্যই সুদের হার কত শতাংশ সে বিষয়ে জিজ্ঞাসা করতে হবে।

আশা এনজিও লোনের সুবিধা

আশা এনজিও থেকে লোন নেয়ার বেশ কিছু সুবিধা রয়েছে। যারা ক্ষুদ্র ও মাঝারী ব্যবসায়ী তারা খুব সহজে এখান থেকে লোন পেতে পারেন। কৃষকদের জন্য মৌসুমী লোনের ব্যবস্থা রাখা হয়েছে। মৌসুমী লোন নিয়ে চাষাবাদের কাজে ব্যয় করতে পারবেন। 

যে সকল গরীব এবং মেধাবী ছাত্র/ছাত্রী পরীক্ষার ফরম ফিল-আপ করার সময় আর্থিক সংকটে পড়েন তারা আশা এনজিও থেকে শিক্ষা লোন নিয়ে লেখাপড়ার কাজে ব্যয় করতে পারবেন।

তাছাড়া যারা উদ্যোক্তা হতে চান তাদের জন্য আশা এনজিও স্পেশাল লোনের ব্যবস্থা রেখেছে। আপনারা চাইলে এখান থেকে লোন নিয়ে একজন সফল উদ্যোক্তা হতে পারেন।

এছাড়া লোন নেয়ার জন্য খুব বেশি কাগজপত্রের প্রয়োজন হয় না। সহজ কিস্তিতে লোন পরিশোধের সুযোগ রয়েছে।

আশা এনজিও লোনের অসুবিধা

যেখানে সুবিধা থাকে সেখানে কিছু অসুবিধা থাকবে এটাই স্বাভাবিক। তেমনি আশা এনজিও থেকে লোন নেয়ার ক্ষেত্রে সুবিধার সাথে কিছু অসুবিধাও রয়েছে। চলুন সেগুলো জেনে নেই।

  • আশা এনজিও থেকে লোন নিতে হলে আপনাকে বিবাহিত হতে হবে।
  • আশা এনজিও লোনের সুদের হার অন্যান্য এনজিও'র ন্যায় অনেক বেশি।
  • লোন পরিশোধের সময়সীমা অনেক কম।
  • লোন পাওয়ার ক্ষেত্রে শর্ত অনেক ইত্যাদি।

পরিশেষে

পরিশেষে বলা যায় যে, বেসরকারি এনজিও সংস্থা থেকে যখন খুশি চাইলেই বিভিন্ন অংকের লোন পাওয়া যায়। আশা এনজিও'র মত জনপ্রিয় এনজিও আমাদের পাশে থাকায় বহু পরিবার তাদের থেকে লোন নিয়ে বিভিন্ন ধরণের খামার তৈরী করে থাকে, দারিদ্র বিমোচন করে থাকে, নানা ধরণের ব্যবসায় পরিচালনা করার মাধ্যমে সাবলম্বী হয়ে থাকে।

এই ছিলো আশা এনজিও পদ্ধতি সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য। আশা করি লেখাটি আপনাদের একটু হলেও উপকারে আসবে। এ বিষয়ে যদি আরো তথ্য জানতে চান তাহলে অবশ্যই নিকটস্থ আশা ব্রাঞ্চ অফিসে যোগাযোগ করবেন। লেখাটি যদি ভালো লাগে তাহলে বন্ধুদের মাঝে শেয়ার করবেন। ধন্যবাদ..!

আরো পড়ুনঃ-

ব্যাংক লোন পাওয়ার উপায়

একটি বাড়ি একটি খামার লোন পদ্ধতি

গ্রামে বাড়ি করার জন্য ব্যাংক লোন পাওয়ার উপায়

2 মন্তব্যসমূহ

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

Post a Comment

নবীনতর পূর্বতন